Breaking News

Computer PC Speed Tips | কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর কিছু উপায়

অধিকাংশ কম্পিউটার (Computer) ব্যাবহারকারীরাই তাদের কম্পিউটার Slow হয়ে যাওয়া সমস্যায় ভোগে থাকেন। কম্পিউটার কেনার পর থেকে যত দিন যায় তত পুরাতন হতে থাকে যার জন্য কম্পিউটারের গতি কমে যায়। আর এডোবি ফটোশপ বা ভিডিও এডিটিংয়ের মতো ভারী সফটওয়্যার ব্যাবহার করে থাকলে তো কথাই নেই। কিন্তু কম্পিউটার ব্যবহারে যদি কিছু নিয়ম মানা হয় তাহলে অনেকাংশেই এই সমস্যা থেকে বাচা যেতে পারে, সাথে সখের কম্পিউটারটিও তার সবলতা ফিরে পেতে পারে। পুরনো কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর কিছু নিয়ম ও কৌশল সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলোঃ

পারফরমেন্স বুষ্টার (Performence Boster): ইন্টারনেটে ফ্রীতে অনেক থার্ড পার্টি সফটওয়্যার পাওয়া যায় যা কম্পিউটারের বিভিন্ন জঞ্জাল পরিষ্কার করে ও কম্পিউটারের গতি বৃদ্ধি করে। কিন্তু ফ্রী সফটওয়্যারের আড়ালে থাকতে পারে ম্যালওয়্যার (Malwere)। যার কারনে আপনার পুরো কম্পিউটার অচল হয়ে যেতে পারে। তাই ফ্রী থার্ড পার্টি সফটওয়্যার ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। পারফরমেন্স বুষ্টার হিসেবে “আইলো সিস্টেম মেকানিক (iolo System Mechanic)” সফটওয়্যারটি ব্যাবহার করতে পারেন। খুবই ভালো কাজ করে। কিনতে খরচ পড়বে প্রায় ৪৫ ডলার।

অপ্রয়োজনীয় অ্যাপঃ আমাদের কম্পিউটারে অনেক সফটওয়্যার ইনষ্টল করা থাকে, তার মধ্যে কিছু প্রয়োজনীয় আর কিছু অপ্রয়োজনীয়। এসব সফটওয়্যার কম্পিউটারে প্রচুর পরিমাণ স্টোরেজ দখল করে রাখে। যার কারনে নানান সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, যেমনঃ পিসি চালু হতে অনেক সময় লাগে, তাছাড়া পিসির র‍্যামের উপরেও প্রচুর চাপ সৃষ্টি হয়। তাই অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যারগুলো আনইনষ্টল করতে হবে।

স্টার্ট আপ প্রসেস (Startup Process): অনেক সময় পিসি চালু করা মাত্রই অনেকগুলো প্রোগ্রাম চালু হয়ে যায়। এতে পিসির অনেক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই এসব প্রোগ্রাম বন্ধ করা উচিৎ। এগুলো বন্ধ করতে “টাস্ক ম্যানেজার (Task Manager)” চালু করতে হবে, চালু করতে না জানলে নিচের ধাপ অনুসুরন করুনঃ

টাস্ক ম্যানেজার (Task Manager) চালু করতে প্রথমে CTRL+SHIFT+ESC চাপুন।
তারপর Startup Column সেকশনে ক্লিক করুন।
তারপর সেই প্রোগ্রামগুলোর উপর মাউসের “রাইট বাটন (Right Button)” ক্লিক করলেই Disable লেখা আসবে। তখন Disable করে দিলেই প্রোগ্রামটি বন্ধ হয়ে যাবে।
ডিস্ক খালি রাখা (Disk Cleanup): কম্পিউটারের জন্য ডিস্ক হলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ডিস্কে অনেক অপ্রয়োজনীয় ফাইল, অফলাইন ওয়েব পেজ ও ইন্সটলার ফাইল থাকে। এসব ফাইলে ডিস্কের অনেক ক্ষতি করে, কম্পিউটার স্লো করে। তাই এসব ফাইল পরিষ্কার করে রাখতে হবে। এগুলো ডিলিট করতে Start Menu তে গিয়ে Disk Cleanup লিখে সার্চ করলেই Disk Cleanup প্রোগ্রাম চালু হয়ে যাবে। তারপর এক এক করে প্রতিটি ড্রাইভ চেক করে অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলো ডিলিট করে নিন।
এসএসডি (Solid State Drive) ব্যাবহারঃ পিসিতে এসএসডি (Solid State Drive) যুক্ত করলে তা কম্পিউটারের গতি অনেকগুন বাড়িয়ে দেয়। অনেকেই পুরনো পিসির গতি বাড়াতে আলাদাভাবে এসএসডি কার্ড কেনেন। এই কার্ড ব্যবহার করলে কম্পিউটারে অনেক ভারী সফটওয়্যার যেমনঃ এডোবি ফটোশপ, ইলাস্ট্রেটর, এডোবি প্রিমিয়ার প্রো এর মতো সফটওয়্যারগুলো দ্রুত গতিতে লোড হয়। এসএসডি কার্ডের স্টোরেজ অনুযায়ী ভিন্ন ভিন্ন দাম হয়।

ভাইরাস আক্রমন (Virus Attack): ম্যালওয়্যারের আক্রমন ঠেকাতে প্রতিটি কম্পিউটারে ডিফল্টভাবে “উইন্ডোজ ডিফেন্ডার (Windows Defender)” ইন্সটল করা থাকে। এটি এন্টিভাইরাসে হিসেবেও কাজ করে থাকে। তবে ইন্টারনেটে ফ্রী ও পেইড অনেক এন্টিভাইরাস পাওয়া যায় যা দিয়ে ভাইরাস আক্রমন ঠেকানো যায়। আমার জানামতে ফ্রীতে একটি এন্টিভাইরাস হলো “এভাস্ট এন্টিভাইরাস (Avast Antivirus)”। এটির যেমন পেইড ভার্সন আছে ঠিক তেমনই ফ্রী ভার্সনও আছে। ফ্রীতে এটি অনেক ভালো প্রটেকশন দিয়ে থাকে।

টিপস অ্যান্ড নোটিফিকেশন বন্ধ করাঃ অসংখ্য সফটওয়্যার ইনষ্টল করা মানে বিরক্তিকরভাবে নোটিফিকেশন পাওয়া। নোটিফিকেশন বন্ধ রাখতে কম্পিউটারের Settings এ গিয়ে “Choose which apps show notification” সার্চ করে সেটিতে ঢুকতে হবে। তারপর একটু স্ক্রল করলেই দেখা যাবে কোন কোন সফটওয়্যার থেকে নোটিফিকেশন আসে। তারপর যে যে সফটওয়্যারের নোটিফিকেশন বন্ধ করার তার পাশে থাকা টগল বাটনটি অফ করে নিতে হবে তাহলে নোটিফিকেশন আসা বন্ধ হয়ে যাবে। এতে অসময়ে যখন তখন আর নোটিফিকশন আসবে না।

About dolon

Check Also

ফেসবুক Locked থাকা প্রোফাইলের কাভার ফটো যেভাবে হাই কোয়ালিটিতে ডাউনলোড করবেন।

ফেসবুক Locked থাকা প্রোফাইলের কাভার ফটো যেভাবে ডাউনলোড করবেন!

সবাই কেমন আছেন? আশা করি ভাল আছেন। আমরা সবাই জানি যে লক দিয়ে রাখা প্রোফাইল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.